video video video



২৬ কেজি ওজন কমিয়ে আরও আকর্ষণীয় রূপে সানিয়া মির্জা!


SPORTSONLY.NET :
11.02.2020

অনেকেই ওজন ঝড়াতে পারেন না সহজে। স্থূলত্ব অনেকেরই সমস্যা। সেই সমস্যাকে তুড়ি মেরেই এবার ওজন-জয় করলেন সানিয়া। চার মাসের মধ্যে ২৬ কেজি ওজন কমালেন তিনি।

অন্তঃস্বত্ত্বা অবস্থায় দীর্ঘদিন কোর্টের বাইরে ছিলেন টেনিস কুইন। বর্তমানে ছেলে ইজহান মালিক অনেকটাই বড় হয়ে গেছে। সানিয়াও কোর্টে ফিরেছেন গর্ভবতী অবস্থার অতিরিক্ত ওজন ঝড়িয়ে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় ভক্তদের সামনে নিজের দুটো ছবি শেয়ার করেছেন তিনি। একই ভঙ্গিতে দাঁড়িয়ে থাকা সানিয়ার বাঁ দিকের ছবি গর্ভবস্থা থাকাকালীন। অন্য ছবিতে স্লিম এবং ফিট সানিয়া।

নিজের পোস্টের কমেন্টে সানিয়া লিখেছেন, “৮৯ কিলোগ্রাম বনাম ৬৩ কেজি! আমাদের প্রত্যেকের নিজস্ব লক্ষ্যমাত্রা থাকে। প্রাত্যহিক এবং দীর্ঘমেয়াদী লক্ষ্য। প্রত্যেক টার্গেটকে সম্মান করো। আমার এই লক্ষ্যে পৌঁছাতে চার মাস লেগেছে। সন্তান প্রসব করার পর ফিট হয়ে ওঠার জন্য সাধারণ ওজনে ফিরতে!”

এখানেই না থেমে গ্ল্যামার গার্ল আরও জানিয়েছেন, “সর্বোচ্চ পর্যায়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্য পুরো ফিটনেসে পৌঁছনোর পর মনে হচ্ছে অনেকটা পথ পেরিয়ে এলাম। বাকিরা যাই বলুক না কেন নিজের স্বপ্নকে সর্বদা ফলো করো। আল্লাহ জানেন আমাদের চারপাশে এরকম কতজন রয়েছেন। যদি আমি পারি, তাহলে বাকিরাও পারবে।”

সানিয়া মির্জা টেনিস জগতে প্রত্যাবর্তনেই ট্রফি জিতেছেন। জানুয়ারিতে হোবার্ট ইন্টারন্যাশানালে দ্বিতীয় বাছাই চায়না জুটি পেন সুয়াই এবং ঝ্যাং সুয়াইকে ফাইনালে ৬-৪, ৬-৪ ব্যবধানে পরাজিত করেছেন সানিয়া ও তার পার্টনার।

তিন বারের গ্র্যান্ডস্ল্যাম জয়ী ভারতীয় তারকা প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক টেনিসে ফিরেছিলেন দু-বছর কোর্টের বাইরে থাকার পর। প্রথমে চোটের কারণে খেলতে পারেননি। পরে অন্তঃস্বত্ত্বা অবস্থায় টেনিস জগতকে সাময়িক বিদায় জানিয়েছিলেন।

২০১৮ সালের অক্টোবরে সানিয়া পুত্রসন্তানের জন্ম দেন। হোবার্টে জিতলেও ফের চোটের কবলে পড়েছেন তিনি। অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের প্রথম রাউন্ডের ম্যাচে খেলতে নেমেই কাফ মাসলে চোট পেয়ে নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছিলেন কিছুদিন আগে।



Copyright © 2019 sportsonly.net