video video video
  • হোম » ক্রিকেট » বাংলাদেশ বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা: কার কী কৌশল?



বাংলাদেশ বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা: কার কী কৌশল?


SPORTSONLY.NET :
02.06.2019

মাশরাফি (বামে) ও ইমরান তাহির

আজ রোববার (২ জুন, ২০১৯) থেকে বিশ্বকাপ মিশন শুরু করছে বাংলাদেশ। প্রতিপক্ষ শক্তিশালী দক্ষিণ আফ্রিকা। বিশ্বকাপে দক্ষিণ আফ্রিকার এটি দ্বিতীয় ম্যাচ, তবে বাংলাদেশের এটি উদ্বোধনী খেলা।

খেলা শুরু হবে ওভালের মাঠে বাংলাদেশ সময় বিকেল সাড়ে ৩টায়।

ওয়ানডে ক্রিকেটের ইতিহাসে এই দুই দল একে অপরের মুখোমুখি হয়েছে ২০ বার, যার মধ্যে ১৭টিতে জয়ী হয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা। বাংলাদেশ জিতেছে ৩ বার।

বাংলাদেশের এই তিনটি জয়ের একটি এসেছে ২০০৭ বিশ্বকাপে। বাকি দুটি ২০১৫ সালের দ্বিপাক্ষিক সিরিজে।

 

কোন দলের কী অবস্থা?

ইংল্যান্ডের জোফরা আর্চারের বল মাথায় লাগার পর চোট পেয়ে মাঠ ছেড়েছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার হাশিম আমলা। এখনও তিনি পর্যবেক্ষণে আছেন। ম্যাচের দিন আজ সকালে জানা যাবে তিনি খেলবেন কি না।

অপরদিকে ডেল স্টেইন খেলা শুরু করতে পারেন ভারতের বিপক্ষে, সেক্ষেত্রে বাংলাদেশের বিপক্ষে মাঠে নামার সম্ভাবনা কম তার।

দক্ষিণ আফ্রিকা দলে অন্তর্ভুক্তি হতে পারে ক্রিস মরিস ও ডেভিড মিলারের।

বাংলাদেশ দলে খুব বেশি পরিবর্তন হতে যাচ্ছে না এই ম্যাচে।

শুধু মাহমুদউল্লাহ যেহেতু চোটের কারণে বল করতে পারবেন না, রিয়াদকে দলে রেখে, একজন স্পিন বোলিং অপশন খুঁজছে টিম ম্যানেজমেন্ট।

 

ম্যাচ নিয়ে মাশরাফি যা বললেন

ওভালে প্রথম ম্যাচে ইংল্যান্ড ৩১১ রান তোলে, দক্ষিণ আফ্রিকা তোলে ২০৭ রান।

একই উইকেটে বাংলাদেশ ও দক্ষিণ আফ্রিকাও লড়বে। উইকেটের সাহায্য কি পাবে বাংলাদেশ?

এ প্রশ্নের উত্তরে বাংলাদেশের অধিনায়ক বলেন, “ওভালে যে উইকেট ছিল আমরা কিছুটা হেল্প পেতে পারি, কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে আমরা সেরাটা যাতে দিতে পারি উইকেট যেমনই থাকুক।”

 

দলের লোয়ার মিডল অর্ডার ও স্পিন অপশন নিয়ে কী ভাবছেন?

জবাবে মাশরাফি বলেন, “মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ এখনই বল করতে পারছে না, সেখানে বাড়তি স্পিনার নেওয়ার ভাবনাও আছে, মূল কনসার্ন হচ্ছে সাত নম্বর জায়গা নিয়ে। আমরা মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের ব্যাটিং স্যাক্রিফাইস করতে চাই না।”

টপ অর্ডার এখন ফর্মে আছে এখন, এটা কি অধিনায়কের জন্য স্বস্তির?

“সৌম্য বা তামিম যদি বড় রান করে সেটা স্বস্তির বিষয় হবে, এশিয়া কাপে ১৫-১৬ রানে ৩ উইকেট পড়ে যেত আমরা সেখানে ভালো করেছি,” বলেন মাশরাফি।

তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, লিটন দাস, মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত সবার ব্যাটেই রান আসছে নিয়মিত।

ডেল স্টেইনের থাকার সম্ভাবনা কম এখনও পর্যন্ত, এটা কী বাংলাদেশকে বাড়তি সুবিধা দেবে?

জবাবে মাশরাফি বলেন, “ডেল স্টেইন থাকা বা না থাকা ব্যাপার না, স্টেইনের বিকল্প হিসেবে যিনি আছেন তিনিও নিশ্চয়ই খারাপ না। আমরা ১০০ ওভার ভালো খেলার চেষ্টা করে যাবো।”

 

স্পিন না থাকা কি দুশ্চিন্তার?

এমন প্রশ্নের জবাবে মাশরাফি বলছেন, হ্যাঁ, এটা একটা ব্যাপার, তবে এখন ফ্ল্যাট উইকেটেও স্পিন ভালো করে, আসলে কে উইকেট নিচ্ছে সেটা ব্যাপার না, প্রতিপক্ষকে চাপে রাখাটা গুরুত্বপূর্ণ।

 

ইমরান তাহির কী বলছেন?

বাংলাদেশের বিপক্ষে আজকের ম্যাচটি তাহিরের শততম ওয়ানডে ম্যাচ।

“আমার জীবনের সবচেয়ে বড় ম্যাচ এটাই হতে যাচ্ছে, আমি জানি আমি কী ত্যাগ স্বীকার করেছি এই ম্যাচের জন্য,” বলছিলেন ইমরান তাহির।

তবে ইংল্যান্ডের উইকেটে স্পিন ধরছে না, এটা নিয়ে তাহিরও দুশ্চিন্তায়, “সবাই জানে বাংলাদেশ যেখানে খেলেছে সেখানে স্পিন সবাই ভালো খেলে, তবে আমি স্পিনার হিসেবে চাইবো স্পিনার দুইজন খেলুক, শামস তাবরিজিও যাতে আমাকে সঙ্গ দেন। এটা একটা চ্যালেঞ্জ আমাদের জন্য আমরা প্রস্তুত।”

কিন্তু বিশ্বকাপে রাবাদা, এনগিদির অভিজ্ঞতা তেমন নেই।

ডেল স্টেইনের ইনজুরির কারণে আরও পিছিয়ে পড়েছে এই বোলিং আক্রমণ।

ফেলুকাইও ও ক্রিস মরিস সাহায্যের হাত বাড়ালেও সেটা যথেষ্ট হচ্ছে না।

তবে বাংলাদেশের জন্য দুশ্চিন্তার কারণ হতে পারেন ইমরান তাহির, যিনি তার শততম ওয়ানডে ম্যাচ খেলতে যাচ্ছেন।



Copyright © 2019 sportsonly.net