video video video



ক্রিকেট বিশ্বকাপের দলীয় যত রেকর্ড


SPORTSONLY.NET :
14.05.2019

১৯৭৫ সালে প্রথম বিশ্বকাপ ক্রিকেট অনুষ্ঠিত হয়। সেই থেকে এখন পর্যন্ত ১১টি প্রতিযোগিতা আয়োজিত হয়েছে। আসুন জেনে নিই দলীয় কিছু রেকর্ডের কথা।

 

সবচেয়ে বেশি চ্যাম্পিয়ন

এখন পর্যন্ত বিশ্বকাপের ১১টি আসর অনুষ্ঠিত হয়েছে। এর মধ্যে অস্ট্রেলিয়া সবচেয়ে বেশি পাঁচবার চ্যাম্পিয়ন (১৯৮৭, ১৯৯৯, ২০০৩, ২০০৭ ও ২০১৫) হয়েছে।

এছাড়া ভারত (১৯৮৩, ২০১১) এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজ (১৯৭৫, ১৯৭৯) দু’বার করে সেরা হয়েছে। পাকিস্তান (১৯৯২) আর শ্রীলঙ্কা (১৯৯৬) চ্যাম্পিয়ন হয়েছে একবার করে।

এবার কি নতুন কেউ সেরার মুকুট পরতে পারবে? ছবিতে ২০১৫ সালের ট্রফি হাতে অসিদের দেখা যাচ্ছে।

 

দলীয় সর্বোচ্চ রান

২০১৫ সালে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ছয় উইকেটে ৪১৭ রান করেছিল অস্ট্রেলিয়া। উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান ডেভিড ওয়ার্নার ১৩৩ বলে ১৭৮ রান করেছিলেন। জবাবে আফগানিস্তান ১৪২ রানে অলআউট হয়ে যায়। অর্থাৎ, অসিরা জেতে ২৭৫ রানে। বিশ্বকাপে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রান ছিল স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে, চার উইকেটে ৩২২ রান। স্কটল্যান্ডের ৩১৮ রানের জবাবে টাইগাররা ওই রান তুলেছিল।

 

দলীয় সর্বনিম্ন সংগ্রহ

প্রথম দুটি রেকর্ডেরই মালিক ক্যানাডা। ২০০৩ সালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে মাত্র ৩৬ রানে অলআউট হয়ে গিয়েছিল তারা। এর আগে ১৯৭৯ সালে ইংলিশদের বিপক্ষে ৪৫ রান করেছিল কানাডা।

এদিকে, বিশ্বকাপে বাংলাদেশের সর্বনিম্ন সংগ্রহ ছিল ৫৮ রান। ২০১১ সালে ঢাকায় অনুষ্ঠিত ওই ম্যাচে প্রতিপক্ষ ছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

 

রানের ব্যবধানে সবচেয়ে বড় হার

বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ রান হয়েছিল যে ম্যাচে সেই ম্যাচেই সবচেয়ে বড় হারের ঘটনাটি ঘটে। ২০১৫ সালে অস্ট্রেলিয়া ও আফগানিস্তানের ওই ম্যাচে আফগানরা হারে ২৭৫ রানে।

 

উইকেটের ব্যবধানে সবচেয়ে বড় হার

বিশ্বকাপে ১০ উইকেটে হারের ঘটনা আছে ১১টি। এর মধ্যে বাংলাদেশ সর্বোচ্চ তিনবার এমন হারের লজ্জায় পড়েছিল। এছাড়া কেনিয়া ও জিম্বাবুয়ে দু’বার করে ১০ উইকেটে হেরেছে।

 

সবচেয়ে কম রানের ব্যবধানে জয়

বিশ্বকাপে সবচেয়ে কম, অর্থাৎ এক রানে হারের ঘটনা আছে দুটি। দুটিতেই ভারতকে হারিয়েছে অস্ট্রেলিয়া।

প্রথমটি ১৯৮৭ সালে। সেবার ২৭১ রানের টার্গেট ছিল।

পরের হারটি এসেছিল ১৯৯২ সালে। সেই সময় ২৩৬ রানের টার্গেট পেয়েও জিততে পারেনি ভারত।

 

সবচেয়ে কম ব্যবধানে জয় (উইকেট)

বিশ্বকাপে মাত্র এক উইকেটের ব্যবধানে হার আছে ছয়টি। এরমধ্যে উল্লেখযোগ্য একটি হচ্ছে, ১৯৮৭ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে পাকিস্তানের জয়টি। ইন্ডিজদের করা ২১৬ রান পেরোতে পাকিস্তানকে শেষ বলটিও খেলতে হয়েছিল।

 

সবচেয়ে বেশি এক্সট্রা

১৯৯৯ সালে স্কটল্যান্ডের সঙ্গে খেলায় ৫৯টি অতিরিক্ত রান দিয়েছিল পাকিস্তান।

এদিকে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বেশি অতিরিক্ত রান দেওয়ার ঘটনাটিও স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে, ১৯৯৯ সালে।

প্রথমে ব্যাট করতে নেমে টাইগাররা ১৮৫ রান তুলেছিল। কিন্তু অতিরিক্ত হিসেবে ৪৪ রান পেয়েও ১৬৩ রানে শেষ হয়ে গিয়েছিল স্কটিশদের ইনিংস।

 

টানা সবচেয়ে বেশি জয়

১৯৯৯ সাল থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত অপ্রতিদ্বন্দ্বী হয়ে উঠেছিল অস্ট্রেলিয়া। ১৯৯৯ সালের ফাইনাল থেকে শুরু করে ২০১১ সালে শ্রীলঙ্কার সঙ্গে ম্যাচটি বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত হওয়ার আগ পর্যন্ত ২৫ ম্যাচ জিতেছিল তারা। তবে অসিরা অপরাজিত ছিল ৩৪ ম্যাচে। কারণ, ১৯৯৯ সালে সেমিফাইনালে টাই হওয়া ম্যাচের আগেও কয়েকটি ম্যাচ জিতেছিল অস্ট্রেলিয়া। আর ২০১১ সালে শ্রীলঙ্কার সঙ্গে ম্যাচ পরিত্যক্ত হওয়ার পর আরেও দুটি ম্যাচ জেতে তারা।

 

টানা সবচেয়ে বেশি হার

১৯৮৩ সালে প্রথমবার বিশ্বকাপ খেলতে নেমে শক্তিশালী অস্ট্রেলিয়াকে ১৩ রানে হারিয়ে দিয়েছিল জিম্বাবুয়ে। কিন্তু এর পরের জয়টি পেতে নয় বছর অপেক্ষা করতে হয় তাদের। এই সময় ১৮টি ম্যাচ খেলেছিল তারা।

 

 



Copyright © 2019 sportsonly.net