video video video



এবার রোনালদোর ‘বিশেষ অঙ্গ’ নিয়ে তরুণীদের মাতামাতি


SPORTSONLY.NET :
06.01.2019

ফের ভাস্কর্য বিড়ম্বনায় ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। এবার এক্কেবারে নিজের দেশেই। নিজেরই তৈরি সংগ্রহশালায়। এর আগেও একটি ব্রোঞ্জ ভাস্কর্য নিয়ে বিপাকে পড়েছিলেন পর্তুগিজ সুপারস্টার। এবার অবশ্য ব্যাপারটা অনেক হাস্যকর। রোনালদোর ভাস্কর্যে নিজেদের গোপন অঙ্গ স্পর্শ করিয়ে ছবি তুলতে পছন্দ করছেন সমর্থকরা। বিশেষ করে তরুণীরা। ওই জায়গাটি এত বেশি পরিমাণে স্পর্শ করতে করা হচ্ছে যে, তা এখন চকচকে হয়ে উঠেছে। ফলে সহজেই এখন নজরে পড়েছে যেকোনো দর্শনার্থীর।

ভাস্কর্যটি স্থাপন করা হয়েছে পর্তুগালের মাদেইরিয়ার ফানচাল শহরে রোনালদোর নিজস্ব জাদুঘরের সামনে। সেখানে রোনালদোর একটি বিলাস বহুল হোটেলও আছে। ২০১৪ সালে এটি দর্শানার্থীদের জন্য উন্মুক্ত করা হয়।

 

কিন্তু কী এমন বিকৃতি হয়েছে রোনালদোর ভাস্কর্যে? আসলে পর্তুগালের মহাতারকার ভাস্কর্যে তার পুরুষাঙ্গের জায়গাটা অস্বাভাবিক রকমের উঁচু দেখা যায়। সমর্থকদের ধারণা ওই জায়গাটি আসলে ইচ্ছাকৃতভাবে উঁচু করা হয়েছে। যদিও এ নিয়ে কর্তৃপক্ষের কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

কিন্তু ভুলটা ইচ্ছাকৃত হোক বা অনিচ্ছাকৃত, রোনালদোর ভাস্কর্যের এই উঁচু পুরুষাঙ্গটিই এখন পর্যটকদের আকর্ষণের মূল কেন্দ্রবিন্দু। বিশেষত তরুণীদের।

 

অনেক তরুণীকেই দেখা গেছে ওই পুরুষাঙ্গের জায়গাটিতে নিজের নিতম্ব ঠেকিয়ে ছবি তুলছেন। সেই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্টও করা হচ্ছে। আবার কাউকে কাউকে দেখা গেছে, পুরুষাঙ্গের কাছের ওই উপরের স্থানটিতে হাত দিয়ে ছবি তুলছেন। সেই ছবিও পোস্ট করা হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

বছর দেড়েক আগে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর একটি ভাস্কর্য ঘিরে এমনই বিতর্ক তৈরি ছিল। সমর্থকদের দাবি ছিল, রোনালদোর ভাস্কর্যটি আর যাই হোক পর্তুগাল সুপারস্টারের মতো দেখতে হয়নি। শেষ পর্যন্ত সেই ভাস্কর্য ভেঙে নতুন করে তা তৈরি করতে হয়েছিল। আবারও সেই ভাস্কর্য বিভ্রাট। এমনিতেই সম্প্রতি বিভিন্ন কারণে শিরোনামে পর্তুগিজ মহাতারকা। একদিকে জুভেন্টাসের হয়ে তার আগুনে ফর্ম অন্যদিকে, ধর্ষণের অভিযোগ। সেসবের সঙ্গে এবার যুক্ত হল এই ভাস্কর্য বিভ্রাট।

সূত্র: স্পোর্ট বাইবেল (ইংরেজি মূল প্রতিবেদন পড়তে সূত্রের ওপর ক্লিক করুন)



Copyright © 2019 sportsonly.net